১০টি লক্ষনের মাধ্যম বুজতে পারবেন ক্যান্সার

লাইফস্টাইল বার্তা

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, গোটা বিশ্বে ক্যান্সার আক্রান্তের সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। এটা এমন একটি রোগ যা সঠিক সময়ে সময়ে ধরা না পড়লে নিশ্চিত মৃত্যু হয়।এ কারণে এই ভয়ানক রোগটি সম্পর্কে আগে থেকে সচেতন হওয়া প্রয়োজন।এমন অনেক ক্যান্সার আছে যেগুলো আগে থেকে বোঝা যায় না। একদম শেষ সময়ে ধরা পড়ে। আবার অনেক ক্যান্সারে কিছু উপসর্গ দেখা দেয়। প্রাথমিক পর্যায়ে চিহ্নিত করা গেলে অনেক ক্ষেত্রেই ক্যান্সার নিরাময় সম্ভব। ক্যান্সার হলে সাধারণত যেসব উপসর্গ দেখা দেয়-

১. কাশি ও ব্রঙ্কাইটিস- দুটিই ফুসফুসের ক্যান্সার ও লিউকোমিয়ার প্রধান কারণ৷ সাধারণত ব্রঙ্কাইটিস হলে প্রচণ্ড কাশি ও বুকে ব্যথা হয় । কিন্তু যদি ব্রঙ্কাইটিসের কাশি চিকিৎসার পরও ভাল না হয় তখন বুঝতে হবে বিষয়টা অন্যদিকে মোড় নিচ্ছে।
২. ফুসফুসের ক্যান্সারের প্রাথমিক লক্ষণ হল শ্বাসকষ্ট । তবে হাঁপানি এবং ক্যান্সারজনিত শ্বাসকষ্টের মধ্যে পার্থক্য আছে । যদি এই সমস্যা দীর্ঘস্থায়ী হয় তাহলে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হওয়া উচিত।
৩. লিউকোমিয়ায় রক্তে শ্বেত রক্ত কণিকার পরিমাণ অস্বাভাবিক হারে বেড়ে যাওয়ায় শরীর বিভিন্ন ধরনের সংক্রমণজনিত রোগে ঘন ঘন আক্রান্ত হয়৷ যেমন -জ্বর, ফ্লু এগুলো লেগেই থাকে।
৪. ফুসফুসের ক্যান্সারের অন্যতম উপসর্গ হলো খাবার গিলতে সমস্যা হওয়া।

৫. শরীরের কোথাও হঠাৎ করে গ্ল্যান্ড ফুলে যাওয়া ক্যান্সারের পূর্ব লক্ষণ হতে পারে।
৬. সারাক্ষণ পেটে ব্যথা থাকলে তা ক্যান্সারের লক্ষণ হতে পারে।
৭. কোলন ক্যান্সার হলে সাধারণত পায়খানার সঙ্গে রক্তপাত হয়।
৮. ডায়েটিং বা শরীরচর্চা ছাড়া অস্বাভাবিক হারে শরীরের ওজন কমে যাওয়া ক্যান্সারের পূর্ব লক্ষণ।তখন খাদ্যে অরুচি দেখা দেয়।
৯. কোনও আঘাত পাননি অথচ শরীরের বিভিন্ন জায়গায় কালশিটে পড়ছে। এটা মোটেও ভাল লক্ষণ নয়।
১০. নখের রং পাল্টে যাওয়াও ক্যান্সারের লক্ষণ । অনেক সময় নখে বাদামি বা কালো রেখা দেখা যায় । নখের রং বিবর্ন হলে বুঝতে হবে লিভার ঠিকঠাক কাজ করছে না। এটা লিভার ক্যান্সারের লক্ষণ হতে পারে।