রাত হলেই সড়কে পতিতাদের উৎপাত!

অপরাধ খেলা বার্তা

রাত হলেই ভাসমান পতিতাদের উৎপাতে সড়ক-মহাসড়কে চলাচলরতরা নাজেহাল, সর্বস্ব হাতিয়ে নেয়া ও যৌন হয়রানি হওয়া সম্পর্কে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ব্যাপারে ভূক্তভোগী স্থানীয়রা জানান, রাত ১০টার পরপরই আশুলিয়ার আব্দুল্লাহপুর-বাইপাইল সড়কে ও নবীনগর-চন্দ্রা মহাসড়কের প্রায় অর্ধশতাধিক স্থানে টাঙ্গাইল, মানিকগঞ্জ, ঢাকা ও গাজীপুরসহ বিভিন্ন জেলার ভাসামান পতিতা ও কতিপয় হিজলা সদস্য সেজেগুঁজে সাধারণ চলাচলরতদের আকর্ষণীয়ভাবে অথবা জড়িয়ে ধরে ডাক-চিৎকার করে। এসময় পথচারীরা হত-বিহব্বল হয়ে পড়ে তাদের পাতানো ফাঁদে পড়ে তাদের কাছে থাকা টাকা, মোবাইলসহ গুরুত্বপূর্ণ জিনিস দিতে বাধ্য হন।

সারারাত এ ভাসমান পতিতা ও হিজলাদের উৎপাতে দিশেহারা সাধারণ পথচারীরা। এসকল ভাসমান পতিতাদের পিছনে রয়েছে প্রভাবশালী দলের লোকদের হাত। আব্দুল্লাহপুর-বাইপাইল সড়কের আশুলিয়া বেঁড়িবাঁধ, মরাগাঙ্গ, আশুলিয়া বাজার সংলগ্ন, জিরাবো, ঘোষবাগ, নিশ্চিন্তপুর স্ট্যান্ড সংলগ্ন এলাকা, নরসিংহপুর মেডলার গার্মেন্টস সংলগ্ন সরকার মার্কেট, বগাবাড়ি, বাইপাইল ব্রীজ, ডিইপিজেড এলাকার ওভার ব্রীজের পার্শ্ববর্তী স্থান, বলিভদ্র বাজার, শ্রীপুর স্ট্যান্ড, মোজারমিল, চক্রবর্তী, জিরানী, কবিরপুর, নন্দন পার্ক এলাকা, জাবি সংলগ্ন ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের বিশমাইল, নবীনগর জাতীয় স্মৃতিসৌধ এলাকার চারপাশ, ওভারব্রীজ এলাকা, বাইশমাইল ও নয়ারহাট এলাকাসহ প্রায় অর্ধশতাধিক স্থানে এসকল ভাসমান পতিতা ও হিজলারা দল বেঁধে অথবা দু’ একজন দাড়িয়ে থেকে তারা পথচারীদের যৌন কাজের জন্য আমন্ত্রণ জানাতে থাকে।

রাতে পোশাক কারখানা ছুটি হওয়ার পর শ্রমিকরা যেমন হয়রানির শিকার হয়ে সর্বস্ব হারায় তেমনি সাধারণ পথচারীরাও এসকল ভাসমান পতিতাদের কবলে পড়ে সর্বস্ব হারায়। এ সকল ভাসমানদের প্রণোদনা দেয় প্রভাবশালী দলের লোকেরা। আর রাতের এ ধরণের ঘটনায় সর্বস্ব হারিয়ে থানায় সাধারণ ডাইরি করলেও অধিকাংশ ভূক্তভোগীরাই মান-সম্মান আর ইজ্জতের ভয়ে তারা চেপে যায় এসব লোমহর্ষক ঘটনা।এ সকল ঘটনা আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর দায়িত্বরতরা দেখেও না দেখার ভান করছেন। সারারাত রাস্তায় ডিউটিতে থাকেন পুলিশ অথচ পুলিশ গাড়ি চালিয়ে চলে যায় কিন্তু এসকল ভাসমান পতিতা ও হিজলাদের ব্যাপারে কোন ধরণের পদক্ষেপে যায় না পুলিশ। অবিলম্বে এ ধরণের কর্মকান্ড বন্ধের জন্য উর্ধ্বতন মহলের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকাবাসী।

সূত্রঃ নয়া দিগন্ত।