শিশুর কাটা মাথা বহনকারীকে পিটিয়ে হত্যা, ভিডিও ভাইরাল

খেলা বার্তা

নেত্রকোনায় ব্যাগে করে শিশুর কাটা মাথা নিয়ে ঘোরার সময় এক যুবককে সন্দেহজনকভাবে ধাওয়া করে পিটিয়ে হত্যা করেছে উপস্থিত জনতা। নিহত যুবক কাটলি এলাকার এখলাছ উদ্দিনের ছেলে রবিন (৩২)। বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) দুপুরে পৌর শহরের নিউটাউন এলাকায় অনন্তপুকুর পাড়ে এ ঘটনা ঘটে। কাটা মাথা পাওয়া শিশুটি একই এলাকায় একটি বাসায় ভাড়া থাকা রিক্সাচালক রহিছ উদ্দিনের সাত বছরের ছেলে সজিব। এই মারধরের ঘটনা ফেসবুকসহ অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীর বরাতে জানা গেছে, আনুমানিক দুপুর ১টার দিকে শহরের বারহাট্টা রোড এলাকা থেকে চোর সন্দেহে ব্যাগ হাতে এক যুবককে ধাওয়া করে জনতা। পরে নিউটাউন অনন্তপুকুরপাড় এলাকায় ঢুকলে আশপাশের মানুষ এসে আটকে ফেলেন। এসময় তার হাতে থাকা ব্যাগ তল্লাশি করে শিশুর মাথা পাওয়া যায়। পরে উত্তেজিত জনতা যুবককে পিটিয়ে হত্যা করে।খবর পেয়ে পুলিশ লাশ এবং শিশুর মাথা উদ্ধার করে নেত্রকোনা মর্গে পাঠায়। এদিকে শহরের মানুষ ঘটনাস্থল-হাসপাতাল এবং থানায় ভিড় জমায়। তারা উত্তেজিত হয়ে পুলিশকেও ধাওয়া করে। এদিন বিকালে শিশুর শরীরের বাকী অংশটিও একই এলাকার পরিত্যক্ত একটি তিন তলা ভবন থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ।

এদিকে শিশুটির মা জানান, তারা গত এক মাস হয় আমতলা থেকে কাটলি হীরাদের বাসায় ভাড়া থাকেন। সকালে শিশুটি দোকানে জুস আনতে যায়। পরে আর ঘরে ফেরেনি। হয়তো বাহিরে খেলা করছে-এই ভেবে তাকে আর খোঁজাখুঁজি করেননি পরিবারের সদস্যরা। পরে নিউটাউন এলাকায় ব্যাগসহ যুবক ধরা পড়লে খবর পান তাদের সন্তানকে হত্যা করা হয়েছে।