মুসলিম হওয়ায় যে ভয়ে থাকেন মঈন আলী ও আদিল রশিদ

খেলা বার্তা

বিশ্বকাপ ট্রফি হাতে উল্লাস করছেন ইংলিশ ক্রিকেটাররা। হঠাৎ কেউ এগিয়ে দিলেন শ্যাম্পেইনের বোতল। সাথে সাথেই সটকে পড়লেন মঈন আলী ও আদিল রশিদ। ইংলিশ ক্রিকেটের উদযাপনে এ এক নিয়মিত দৃশ্য! মঈন ও রশিদ ইংলিশ ক্রিকেট দলের সাথে আছেন অনেকদিন ধরেই। ইংলিশদের যেকোনো উদযাপনের অন্যতম প্রধান অনুষঙ্গ শ্যাম্পেইন। ইসলাম ধর্মে আবার বিধিনিষেধ আছে মদজাতীয় পণ্য ব্যবহারে। দলের উদযাপনে মঈন ও রশিদকে তাই তটস্থ থাকতে হয়- এই বুঝি খোলা হচ্ছে শ্যাম্পেইনের বোতল!

তবে দল থেকে যথেষ্ট সম্মান, শ্রদ্ধা ও সমর্থন পান এই দুই ক্রিকেটার। ডেইলি সানের প্রতিবেদনে জানালেন খোদ আদিল রশিদ ও মঈন আলী। রশিদ বলেন, ‘আমি আর মঈন সবসময় সতর্ক থাকি কখন শ্যাম্পেনের বোতল আসবে। আমরা শুধু সরে দাঁড়াই, উদযাপন শুরুর আগে। দলের সবাই সবাইকে সম্মান করে, ব্যাপারটা দারুণ। তারা আমাদের ধর্মীয় নিয়মটা জানে, সেটাকে সম্মান করে আলাদা উদযাপন করে। এটাই ইংল্যান্ডের ক্রিকেট।’ একই কথা জানালেন মঈন আলীও। তার দাবি, ইসলাম ধর্মাবলম্বী মঈন ও রশিদকে অনেক ব্যাপারে ছাড় দিয়েছেন সতীর্থরা,

জানিয়েছেন শ্রদ্ধা, ‘ইংল্যান্ড দলের সৌন্দর্য হলো এখানে সবাই সবার ধর্ম ও সংস্কৃতি নিয়ে আলোচনা করে। আমাদের জন্য তারা অনেক ব্যাপারে ছাড়ও দিয়েছে। আমরা মিলেমিশেই ড্রেসিংরুমে থাকি।’ পাশ্চাত্য সংস্কৃতির দেশগুলোতে মদজাতীয় পণ্য ব্যবহার স্বাভাবিক বিষয়। উদযাপনের অনুষঙ্গ হিসেবে এর ব্যবহার তাই অস্বাভাবিক নয়। কিন্তু মঈন ও রশিদের কথা মাথায় রাখতে ভুলেন না তাদের সতীর্থরা।