ছাত্রলীগকে সংযত হওয়ার পরামর্শ ‍কাদেরের

জাতীয় বার্তা

আচার-আচরণ দিকে থেকে ছাত্রলীগকে সংযত হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেছেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে রুম ও ভর্তি বাণিজ্য কারা করে তাদের খোঁজ নিয়ে বের করা হবে। এর সঙ্গে যারাই জড়িত তাদের চিহ্নিত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে। এসব কাজ থেকে ছাত্রলীগকে অবশ্যই বিরত থাকতে হবে।

বুধবার (১ জানুয়ারি) বিকেলে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংগঠনটির সাংগঠনিক দক্ষতা বৃদ্ধিতে ওরিয়েন্টেশন কোর্সের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয়ের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলির সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক ও আবদুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল হক, শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল এবং ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য বক্তব্য রাখেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, হলগুলোতে কাদের কাদের পলিটিক্যাল রুম আছে তা খোঁজ নিয়ে বের করা হবে। ছাত্রলীগের কোনও রাজনৈতিক রুম থাকবে না।

সাধারণ সম্পাদক বলেন, বেশি পড়াশোনা করলেই মেধাবি হওয়া যায় না। একজন ছাত্রের আচরণগত দিকটাই গুরুত্বপূর্ণ। একটি খারাপ আচরণে কারণে ১০টি ভালো অর্জন নষ্ট হয়ে যায়। তাই ছাত্রলীগকে আচরণের দিক থেকে ভালো হতে হবে। বুয়েটে আবরারকে যে হত্যা করলো, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপকের সাথে যে খারাপ আচরণ করলো, তারা কোন ছাত্রলীগ? তাদের আমরা চাই না। এমন ছাত্রলীগের দরকার নাই।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আরও বলেন, ছাত্রলীগকে বলবো আচরণ ও সততা শিখতে। এগুলো শিখতে বাইরে যাওয়ার দরকার হয় না। শেখ পরিবারকে দেখুন, এই পরিবারের কাছ থেকে শিখুন। এই পরিবারের দিকে তাকান, সৎ কাকে বলে বুঝতে পারবেন। বঙ্গবন্ধু পরিবারের আমাদের আদর্শ, সততার রাজনীতির আদর্শ, এই আদর্শকে ধারণ করতে হবে। বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার সাফল্য কি? তাদের সাফল্য হলো সততা ও সাহসের মিশন। এই বিষয়গুলো মনে রাখত হবে। আমাদের নেত্রী শেখ হাসিনা বলেন, স্বপ্ন দেখবেন বড়, জীবন-যাপন করবেন সাধারণ। এতে করে জীবনটা ভালো হবে।

কাদের বলেন, বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনা বাংলাদেশে চির স্মরণীয় হয়ে থাকবেন। দুটো কর্মকে মানুষ কোনও দিন ভুলে না, জীবন শেষ হলেও তারা কোনও দিন মরে না। এক হলো দেশের স্বাধীনতার জন্য সংগ্রাম ও সততার রাজনীতি।

বঙ্গবন্ধুর ও শেখ হাসিনার সততার ও সাহসের রাজনৈতিক কারণে কোনও দিন মৃত্যু হবে না, চিরকাল স্মরণীয় হয়ে থাকবে।

স্রোতের প্রতিকূলে লড়াই করে যারা টিকে থাকতে পারবে তারাই সত্যিকারের নেতা হতে পারবে বলেও এ সময় উল্লেখ করেন ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, রাজনীতিকে পুঁজি করে ভাগ্যোন্নয়ন করতে চাইলে তাদের ছাত্রলীগ করার দরকার নাই।

তিনি বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশে অর্থনৈতিক মুক্তির সংগ্রাম চলছে, সেই সংগ্রামে ছাত্রলীগকে অগ্রণী ভূমিকা রাখতে হবে।