শনিবারের মধ্যে পাকিস্তান সফরের দল ঘোষণা, যাত্রা ২২ জানুয়ারি

খেলা বার্তা

অনেক হইচই, নানান নেতিবাচক বার্তা। পাকিস্তানে জীবনের নিরাপত্তা কম। সন্ত্রাসী ও জঙ্গী হামলায় জীবননাশ প্রতিদিনকার ঘটনা। নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা আর উদ্বেগ প্রকাশও হয়েছিল সেই রকম। আবার পাকিস্তানের অতি নিরাপত্তা ব্যবস্থায় ক্রিকেটার থাকা নিয়েও কম তীর্যক আলাপ আলোচনা হয়নি।

কিন্তু শেষপর্যন্ত সব নেতিবাচক কথন অসাড় ও অমূলক প্রমাণিত হলো। সব অনিশ্চয়তার অবসান ঘটিয়ে পাকিস্তান সফরে যাচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। তাও একবার নয়, তিন বার এবং সেটাও পূর্ণাঙ্গ সিরিজ খেলতে। মানে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ তো থাকছেই, সঙ্গে দুই টেস্টের সিরিজ এবং বোনাস হিসেবে একটি ওয়ানডেও হবে।

এর মধ্যে আগামী ২৪ জানুয়ারি থেকে শুরু প্রথম ভাগ। ঐ পর্বে তিনটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলতে লাহোর যাবে টিম বাংলাদেশ। আগামী ২৪, ২৫ আর ২৭ জানুয়ারি পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের রাজধানী লাহোরের গাদ্দাফী স্টেডিয়ামে হবে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজটি।

আগে যত কথাই হোক আর যেমন নেতিবাচক পরিস্থিতি বিরাজ করুক না কেন, শেষপর্যন্ত দল যাচ্ছে এবং আইসিসি প্রেসিডেন্ট শশাঙ্ক মনোহরের উপস্থিতিতে বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান পাপন ও পিসিবি সভাপতি এহসান মানি বসেই সব ফয়সালা করেছেন, সফর সূচীও তৈরী হয়েছে এবং বিসিবি বিগ বস নাজমুল হাসান পাপন একটা গ্রহণযোগ্য সমাধানের জন্য পিসিবিকে ধন্যবাদও দিয়েছেন।

কাজেই ধরেই নেয়া যায়, সব অনিশ্চয়তার অবসান ঘটেছে। এখন প্রাথমিকভাবে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে পাকিস্তান যাবে টাইগাররা। তাই ক্রিকেট অনুরাগিদের কৌতূহলি প্রশ্ন এখন দুটি। ১. দল ঘোষণা কবে? পাকিস্তান সফরে দল নির্বাচন ও ঘোষণা কবে নাগাদ হবে? ২. টাইগাররা পাকিস্তান যাবে কোনদিন?

দল নির্বাচন ও ঘোষণার কাজ যে কমিটির ওপর ন্যস্ত সেই নির্বাচক কমিটির প্রধান মিনহ্জুল আবেদিন নান্নু পরিষ্কার জানিয়ে দিলেন, হাতে সময় যেহেতু খুব কম, তাই যা করার খুব শীঘ্রই করতে হবে। আজ (বুধবার) সকালে  নান্নু জানান, ‘বোর্ড সভাপতি দেশে ফিরে আসবেন অঅজ। তার কাছ থেকে একটা দিক নির্দেশনার অপেক্ষায় আছি আমরা। তিনি এসে নিশ্চয়ই পুরো সফরসূচী ও দল নিয়ে আমাদের সঙ্গে বসবেন। তখনই আসলে বলা যাবে কবে নাগাদ দল ঘোষণা।’

তিনি আরও বলেন, ‘তবে যেহেতু অল্প কিছুদিন আগেই ভারতের মাটিতে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলে এসেছে জাতীয় দল, তাই স্কোয়াড মোটামুটি সাজানোই আছে। যেহেতু ব্যাক টু ব্যাক সিরিজ, তাই ঢালাও বা উল্লেখযোগ্য পরিবর্তনের সুযোগ নেই। আমরা সে পথে হাঁটবোও না। তাই আশা করছি কাল-পরশুর ভেতরে সব ঠিক করে ১৭ জানুয়ারি বিপিএল ফাইনালের দিন বোর্ডে জমা দিয়ে দেব। তার আগেও সম্ভব হলে দিতে পারি। এখন ঘোষণা কবে, সেটা বোর্ড সভাপতির অনুমোদনের পর বোর্ডই জানাবে।’

তার মানে ধরেই নেয়া যায় যে, আগামী ৪৮ থেকে ৭২ ঘন্টার ভেতরে পাকিস্তানের বিপক্ষে খেলার জন্য টি-টোয়েন্টি দল তৈরি হয়ে যাবে এবং তার ঘোষণাও চলে আসবে।

সফরের আগে হবে অনুশীলন ক্যাম্প

এদিকে দল ঘোষণার ব্যাপারে তথ্য পাওয়ার পরপরই দুটি প্রশ্ন খুব প্রাসঙ্গিকভাবে উঠে আসছে। প্রথম হলো, জাতীয় দল পাকিস্তান যাবে কবে আর যাবার আগে দেশে ২-৩ দিনের কোনো প্রস্তুতি ক্যাম্প হবে কি না?

ক্রিকেট অপারেশন্স ম্যানেজার সাব্বির খানের কাছে এই প্রশ্ন রাখা হলে তিনি জানান, ‘দল পাকিস্তান যাবে ২২ জানুয়ারি, এর আগে একটি অনুশীলন ক্যাম্প হবে। তবে সেটা কবে শুরু, তা এখনই বলা যাচ্ছে না। তবে ১৭ জানুয়ারি যেহেতু ফাইনাল এবং সম্ভাব্য দলের বেশ কজন ক্রিকেটারের ঐ ম্যাচ খেলার সম্ভাবনা আছে। তাই ধারণা করা হচ্ছে, ১৮ কিংবা ১৯ জানুয়ারি থেকে ২১ জানুয়ারি তিন দিনের ছোট্ট একটা প্রস্তুতি পর্ব হবে ঢাকাতেই। তারপর ২২ জানুয়ারি দল করাচি হয়ে লাহোরের উদ্দেশ্যে যাত্রা করবে।’