ঈদে টানা নয় দিনের লম্বা ছুটি

বিবিধ

কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে ম্যারাথন ছুটির কবলে পড়তে যাচ্ছে দেশ। আগামী ৯ আগস্ট থেকে ১৭ আগস্ট পর্যন্ত নয় দিনের লম্বা ছুটিতে যাচ্ছে দেশ। এর মধ্যে ১৪ আগস্ট একদিন অফিস আদালত খোলা থাকলেও সেদিন উপস্থিতি থাকবে নগণ্য, এটা ধারণা করা যায়। যদিও এরই মধ্যে বিভিন্ন দপ্তর থেকে ১৪ আগস্ট বিশেষ ছুটি ঘোষণার জন্য প্রস্তাব করেছেন অনেকেই। লম্বা এই ছুটি ঈদ যাত্রায় মানুষের ভোগান্তি কমাবে বলেও সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো মন্তব্য করেছে। অবশ্য ঈদ উপলক্ষে লম্বা এই ছুটিতে অনেকেই দেশের বাইরে চলে যাচ্ছেন।

চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ১২ আগস্ট দেশে ঈদুল আজহা উদযাপিত হবে। ঈদ উপলক্ষে তিনদিনের সরকারি ছুটি শুরু হবে ১১ আগস্ট রোববার থেকে। কিন্তু বাস্তবে ছুটি শুরু হবে ৯ আগস্ট শুক্রবার থেকে। ৮ আগস্ট বৃহস্পতিবার অফিস শেষে মানুষজন ঈদের ছুটিতে ছুটতে শুরু করবেন। ৯ এবং ১০ শুক্র ও শনিবার সাপ্তাহিক ছুটি। ১১ আগস্ট রোববার থেকে ১৩ আগস্ট মঙ্গলবার পর্যন্ত ঈদের ছুটি। ১৪ আগস্ট বুধবারে একদিন খোলা। ১৫ আগস্ট বৃহস্পতিবার জাতীয় শোক দিবস। ১৬ এবং ১৭ আগস্ট শুক্র ও শনিবার যথারীতি সাপ্তাহিক ছুটি। এতে করে ৯ আগস্ট থেকে ১৭ আগস্ট পর্যন্ত নয়দিনই ছুটি থাকবে। ১৪ আগস্ট অফিস আদালতে লোকজন থাকবে না বলে উল্লেখ করে ওইদিন নির্বাহী আদেশে ছুটি ঘোষণা করে দিলে মানুষের উপকার হবে বলেও মন্তব্য করেছেন অনেকেই। গতকাল বিষয়টি নিয়ে আলাপকালে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের একজন কর্মকর্তা বলেন, আসলে ওই দিন কোন লোকই অফিসে আসবে না। শুধু শুধু অফিস খোলা রেখে এসি এবং ফ্যান চালিয়ে কোটি কোটি টাকার বিদ্যুৎ বিল দিতে হবে। টেলিফোন বিল দিতে হবে। কাজের কাজ কিছুই হবে না। তার থেকে নির্বাহী আদেশে ছুটি ঘোষণা করে দেয়া হলে মানুষের উপকার হবে। দেশও লাভবান হবে।

প্রসঙ্গক্রমে তিনি বলেন, ছুটি লম্বা হলে মানুষ বাড়ি যাওয়ার জন্য হুড়োহুড়ি করবেন না। রয়ে সয়ে যাবেন। এতে সড়কে যানজটসহ বিভিন্ন অপ্রীতিকর পরিস্থিতি থেকে নিস্তার মিলবে। পৃথক পৃথক দিনে মানুষ শহরে ফিরবেন। এতেও রাস্তার শৃংখলা রক্ষা সহজ হবে।
সাম্প্রতিক সময়ে এত লম্বা ছুটির আর কোন রেকর্ড নেই উল্লেখ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলেছে, ঈদের এই লম্বা ছুটিতে অনেকেই দেশের বাইরে চলে যাচ্ছেন। বিদেশে অবস্থানকারী প্রিয়জনের সাথে ঈদ করতে অনেকেই বিদেশ যাচ্ছেন। আবার অনেকেই প্রিয়জনদের নিয়ে বিদেশে ঘুরতে যাচ্ছেন। ট্রাভেল অপারেটর বি-ফ্রেশের একজন কর্মকর্তা বলেছেন, প্রচুর লোকজন থাইল্যান্ড এবং ইন্ডিয়াতে ঈদ করতে যাচ্ছেন।

x