ভয়ঙ্কর নয়ন বন্ড কোথায়

জেলা বার্তা

বরগুনার রিফাত হত্যাকান্ডের ঘটনায় এ পর্যন্ত নয় জন গ্রেফতার হলেও মূল ঘাতক মাদক-অস্ত্রসহ ৮ মামলার আসামি নয়ন বন্ড ও তার সহযোগীরা এখনো অধরা রয়েছে। ঘটনার চার দিন পরও পুলিশ তাদের খুঁজে পায়নি। অভিযোগ রয়েছে, প্রভাবশালীদের ছত্রচ্ছায়ায় থাকায় সময়মতো পুলিশ এদের ধরেনি। ফলে তারা গা-ঢাকা দিয়ে আছে। এসব ঘাতককে গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ ও মানববন্ধনও অব্যাহত রয়েছে।

এদিকে যেসব আসামি এখনো ধরা পড়েনি তারা খুব শিগগিরই ধরা পড়বে বলে সংবাদ সম্মেলন করে জানিয়েছেন বরগুনার পুলিশ সুপার মো. মারুফ হোসেন। গতকাল বরগুনার পুলিশ সুপার কার্যালয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি দাবি করেন, ‘আসামিরা আমাদের নজরদারিতে আছে। খুব শিগগিরই আসামিদের ধরতে পারব। শুধু বরগুনার পুলিশ নয়, সারা দেশের পুলিশ সতর্ক অবস্থানে আছে। খুবই শিগগিরই ভালো সংবাদ দিতে পারব।’ এখন পর্যন্ত মূল আসামি ধরা না পড়া আপনাদের তৎপরতার ঘাটতি কিনা- এমন প্রশ্নের জবাবে পুলিশ সুপার বলেন, ‘আসামি ধরা এটা তো ঘণ্টাব্যাপী বা সেকেন্ডব্যাপী হয় না। টেকনিক্যাল অনেক বিষয় আছে? তার মানে এটা নয় যে, এত ঘণ্টা পেরিয়ে গেলেও আসামি ধরলাম না বা আসামি আমাদের নজরদারির বাইরে চলে গেছে বা আমাদের গাফিলতি আছে। বিষয়টি তা নয়। আমরা রাত-দিন বিষয়টি নিয়ে কাজ করে যাচ্ছি। আমার আস্থা আছে, আমার টিমের প্রতি আস্থা আছে, আমার কাজের প্রতি আস্থা আছে। তাই আমি কনফিডেন্টলি বলতে পারি, আমরা শিগগিরই আসামি ধরতে পারব।’ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য কতজনকে আটক করা হয়েছে- এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘এটা এ মুহূর্তে বলা যাবে না। কারণ অনেকেই গোপনে আমাদের কাছে এসে ইনফরমেশন দিচ্ছে। আবার অনেককেই জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আনছি। এ বিষয়টি আপাতত গোপন থাক।’

পালানোর পথ বন্ধ : রংপুর থেকে নিজস্ব প্রতিবেদক জানান, পুলিশ মহাপরিদর্শক ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী গতকাল বিকালে রংপুরে পুলিশ সুপার কার্যালয়ের নতুন ভবন উদ্বোধনের সময় বলেছেন, রিফাত হত্যাকারীদের পালানোর সব পথ বন্ধ। তারা যাতে দেশ ছেড়ে যেতে না পারে সেজন্য সব ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। তাদের জন্য সীমান্ত, সড়ক, রেল, আকাশপথ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। শিগগিরই তাদের গ্রেফতার করে আইনের কাছে সোপর্দ করা হবে।
আসামিদের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে গ্রেফতারের নির্দেশনা চেয়ে রিট : বরগুনার আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যা মামলার আসামিদের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে গ্রেফতারের নির্দেশনা চেয়ে রিট করেছেন সুপ্রিম কোর্টের এক আইনজীবী। একই সঙ্গে, খুনিরা যেন দেশত্যাগ করতে না পারে সে বিষয়ে দেশের সব বন্দরে রেড অ্যালার্ট জারিরও নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে রিটে। গতকাল সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ইউনুছ আলী আকন্দ হাই কোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় এই রিট করেন। রিটের বিবাদীরা হলেন, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব, আইন বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব, পুলিশের মহাপরিদর্শক, র‌্যাবের ডিজি, বিজিবি মহাপরিচালক, বরিশাল বিভাগীয় পুলিশের ডিআইজি, জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার ও সংশ্লিষ্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা।

বিচার দাবিতে মানববন্ধন : রিফাত হত্যাকান্ডের খুনিদের ফাঁসির দাবি জানিয়ে মানববন্ধন করেছে ঢাকাস্থ বরগুনাবাসী। গতকাল বেলা ১২টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।মানববন্ধনে ঢাকায় বসবাসকারী বরগুনার ব্যবসায়ী, রাজনীতিবিদ, সংস্কৃতিকর্মীসহ সবাই অংশ নেয়। এ সময় তারা ‘আমার ভাই কবরে কেন, খুনি তুই জবাব দে’, ‘রিফাত হত্যার বিচার চাই, খুনিদের ফাঁসি চাই’ ইত্যাদি স্লোগান দিতে থাকেন।

বরগুনায় মানববন্ধন : চাঞ্চল্যকর রিফাত শরীফ নৃশংস হত্যাকান্ডে র দ্রুত বিচারের দাবিতে বরগুনা প্রেস ক্লাব চত্বরে গতকাল সকাল ১০টায় জেলা বিএনপি ও ১১টায় বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা এডাব পৃথক মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে।

পটুয়াখালীতে মানববন্ধন : পটুয়াখালী প্রতিনিধি জানান, এ হত্যার প্রতিবাদে এবং পলাতক ঘাতকদের অনতিবিলম্বে গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছে ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন। গতকাল বিকাল ৪টায় পটুয়াখালী প্রেস ক্লাবের সামনে ঘণ্টাব্যাপী এ মানববন্ধন করা হয়।